বিদেশ

নিউজিল্যান্ডে সন্ত্রাসবাদী হামলায় নিহত ৪৯, আহত ৪৮, নিরাপদে বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা

নজরে বাংলা ডেস্ক (ক্রাইস্টচার্চ, নিউজিল্যান্ড) : নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে শুক্রবার জুমার নামাজের সময় দুটি মসজিদে সন্ত্রাসী দুই বন্দুকধারীর হামলায় ৪৯ জন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রত্যক্ষদর্শীরা। এছাড়া এই ঘটনায় আহতের সংখ্যা ৪৮ জন বলে জানিয়েছে পুলিশ। শুক্রবার স্থানীয় সময় দুপুর দেড়টায় জুমার নামাজের সময় হওয়া এ হামলায় দুই বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। অস্ট্রেলিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার এম সুফিউর রহমান সংবাদমাধ্যমকে এই খবর জানিয়েছেন।
হামলার এক প্রত্যক্ষদর্শী লেন পেনেহা বলেন, সেন্ট্রাল ক্রাইস্টচার্চে স্থানীয় সময় দুপুর পৌনে ২টার দিকে কালো পোশাকধারী এক ব্যক্তিকে তিনি আল নূর মসজিদের ভেতরে প্রবেশ করতে দেখেছেন। এরপর বেশ অনেক রাউন্ড গুলির আওয়াজ শুনতে পান। আতঙ্কিত মানুষজন মসজিদ থেকে এদিক ওদিকে ছুটে পালাতে থাকেন। ঘটনার সময় তিনি ওই মসজিদের পাশের বাড়িতে ছিলেন। তিনি আরও জানান, হামলাকারীকে তিনি অস্ত্রসহ মসজিদ থেকে দৌঁড়ে তার বাড়ির গ্যারেজ দিয়ে পালিয়ে যেতে দেখেছেন। এরপর মানুষকে সাহায্য করার জন্য মসজিদের ভেতর প্রবেশ করে পেনেহা বলেন, ‘আমি সর্বত্র মানুষের লাশ দেখেছি। এটা অবিশ্বাস্য ও ন্যাক্কারজনক হামলার ঘটনা। আমি বুঝতে পারছি না, কিভাবে একজন মসজিদের ভেতর এমন হামলা করতে পারে। নিউজিল্যান্ডের বৈদ্যুতিন মাধ্যম জানিয়েছে, ডিনস এভে অবস্থিত মসজিদ আল নুর ও লিনউড এভের লিনউড মসজিদে দুই বন্দুকধারী একযোগে হামলা চালায়। মসজিদের ভেতরে জুমার নামাজে সেজদারত মুসল্লিদের ওপর গুলি ছোঁড়া হয়। এ ঘটনায় ৪৯ জনের মৃত্যু এবং ৪৮ জন আহত হয়েছে। এটিকে সন্ত্রাসী হামলা আখ্যা দিয়ে নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন বলেছেন, ‘এই ঘটনা নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসে সবচেয়ে কালো অধ্যায়। তবে আমরা চরম ও উগ্রপন্থীদের কাছে মাথা নত করব না।’ 
ব্রেনটন ট্যারেন্ট নামে ২৮ বছর বয়সী এক অস্ট্রেলিয়ান-বংশোদ্ভূত শ্বেতাঙ্গ যুবক সোস্যাল মিডিয়ায় লাইভে এসে মসজিদে হামলা চালায়। ১৭ মিনিট ধরে হামলার লাইভ ভিডিও প্রচারিত হয়। ঘটনার পর ক্রাইস্টচার্চের মেয়র লিয়ানে ডালজিয়েল স্থানীয়দের শহরের কেন্দ্রস্থল এড়িয়ে চলার আহ্বান জানিয়েছেন। সেই সঙ্গে বাসিন্দাদের ঘর থেকে আপাতত বের না হবার জন্য সতর্ক করেছেন।

এদিকে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে চলতি টেস্ট সিরিজের তৃতীয় ম্যাচ খেলতে দেশটি সফরে রয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়রা। ভয়াবহ এ হামলার সময় তারা ক্রাইস্টচার্চেই ছিলেন। তবে বাংলাদেশ দল নিরাপদে আছেন বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ দলের ওপেনার তামিম ইকবাল। তিনি এক টুইটে জানিয়েছেন, ‘পুরো দল বন্দুকধারীদের হাত থেকে বেঁচে গেছে। ভয়াবহ অভিজ্ঞতা। আমাদের জন্য দোয়া করবেন।’ ন্যাক্কারজনক এই ঘটনার পর সমগ্র দেশে একদিনের জন্য সকল মসজিদ বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। 
ছবি: (উপরের) আল নুর মসজিদ, সৌজন্য- দ্য নিউইয়র্ক টাইমস্

NB

Leave a Reply