দেশ

বুধবার পালিত হল বখরি ঈদ বা ঈদ-আল-আধা

নজরে বাংলা ডেক্স : ২১ জুলাই বুধবার পালিত হল বখরি ঈদ বা ঈদ-আল-আধা। মুসলিম লুনার ক্যালেন্ডার অনুযায়ী ধু অল-হিজ্জা মাসের দশম দিনে পালিত হয় ঈদ-আল-আধা। জমিয়ত উলেমা-এ-হিন্দ অনুসারে ভারতে জুল-ইজাহ মাসের প্রথম চাঁদ দেখা গিয়েছিল ১১ জুলাই ২০২১। তার দশ দিন পরে ২১ জুলাই পালিত কোরবানির ঈদ। ঈদ-অল-আদাহ,এটা একটা আরবিক ভাষা। আদাহর অর্থ কোরবানি মানে উৎসর্গ করা। ঈদ-উল-আদাহকে বলা হয় ‘আত্মত্যাগের উৎসব’ । অর্থাৎ নিজের অতি প্রিয় কিছু জিনিসকে ত্যাগ করে তার মোহ, মায়ার উপরে উঠতে হয়। এই দিনটা কাটে বিশেষ প্রার্থনা, কুরবানি, খাওয়া-দাওয়া আর আনন্দ উৎসবের মধ্য দিয়েই। পশু কুরবানি দেওয়াই এই ঈদের প্রধান রীতি । বেশিরভাগ সময়ই পশু হিসাবে ছাগলকেই কুরবানি দেওয়া হয়। তাই এই ঈদের চলতি নাম বখরি ঈদ।

এই ঈদের পিছনের আসল গল্পে অবশ্য পশু কুরবানির কোনও কথা উল্লেখ নেই । নবী হজরত ইব্রাহিম নিঃসন্তান ছিলেন । আল্লাহর কাছে অনেক প্রার্থনার পর একটি ছেলে হয় তাঁর। ছেলের নাম রাখেন ইসমাইল। সেই ছেলে ছিল হজরতের নয়নের মণি। একদিন ইব্রাহিম স্বপ্ন দেখেন, আল্লাহ তাঁর কাছে তাঁর সব থেকে প্রিয় জিনিসটা চাইছেন। ঘুম ভাঙার পর তিনি ভেবে দেখেন, তাঁর কাছে সবচেয়ে প্রিয় জিনিস হল তাঁর ছেলে । তিনি ছেলেকে উত্‍সর্গ করতে রাজি হয়ে যান। ছেলেকে উত্‍সর্গ করার সময় ইব্রাহিম নিজের চোখে পট্টি বেঁধে নেন, যাতে ছেলের প্রতি কোনও মায়া না থাকে। কিন্তু ছেলেকে উৎসর্গ করার পরেও চোখ খুলে দেখেন ছেলে পাশেই রয়েছে । বুঝতে পারেন,আল্লাহ তাঁর ভক্তি আর ধৈর্য্যের পরীক্ষা নিচ্ছিলেন। এরপর একটি ভেড়া বলি দেন তিনি । এরপরে থেকেই সেই প্রথা চলে আসছে । এই দিন মুসলিম সম্প্রদায়ের সকলেই ছাগল বা ভেড়া কোরবানি দেন। আল্লাহর প্রতি তাদের আনুগত্য, শ্রদ্ধা প্রকাশ করার এই দিনে সমাজের তরফ থেকে তাঁরা, ত্যাগ, হিংসা বিসর্জন দেন। কোরবানির মাংস মূলত তিন ভাগে ভাগ করা হয়। প্রথম ভাগ পরিবারের সদস্য, বন্ধুবান্ধব এবং আত্মীয় স্বজনদের জন্য, দ্বিতীয় ভাগ গরিব মানুষদের জন্য, তৃতীয় ভাগ একদম কাছের ঘনিষ্ঠ কিছু মানুষদের জন্য।

ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ দেশবাসীকে ঈদ- উল-আজহা’ র শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এক বার্তায় রাষ্ট্রপতি বলেছেন, “ঈদ- উল আজহা উপলক্ষে দেশবাসী বিশেষ করে মুসলমান সম্প্রদায়ের ভাই ও বোনদের প্রতি আমার শুভেচ্ছা জানাই। ঈদ হচ্ছে ভালোবাসা, নিঃস্বার্থতা এবং ত্যাগের চেতনার প্রতীক। এই উৎসব পারস্পরিক সৌহার্দ্য এবং সম্প্রীতির বার্তা নিয়ে আসে। এই উৎসবের মাধ্যমে দরিদ্র এবং অসহায় মানুষের সঙ্গে আনন্দ ভাগ করে নেওয়ার একটা সুযোগ সৃষ্টি হয়। আসুন আমরা কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ের প্রতিশ্রুতি রাখি যাতে এর বিস্তার রোধে ব্যবস্থা নেওয়া যায় এবং সমাজের প্রতিটি মানুষের সুখ ও কল্যাণে কাজ করা যায়।”

ভারতের উপরাষ্ট্রপতি শ্রী এম ভেঙ্কাইয়া নাইডু ঈদ-উল-আজহা’ র দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এক শুভেচ্ছা বার্তায় তিনি বলেছেন,” ঈদ- উল- আজহা উপলক্ষে দেশবাসীকে আমার উষ্ণ অভিনন্দন এবং শুভেচ্ছা জানাই। ইদুজ্জোহা হচ্ছে আসলে কোরবানির উৎসব, যা ঈশ্বরের প্রতি চূড়ান্ত নিষ্ঠার পরিচয় বহন করে। আমাদের দেশের উৎসব গুলি পরিবার এবং সম্প্রদায়ের মধ্যে একত্রিত হয়ে উদযাপন করতে সাহায্য করে। তবে কোভিড-১৯ জনিত অতি মারির কারণে আমাদের সংযত হয়ে উৎসব উদযাপন করতে হবে। অত্যন্ত সর্তকতা অবলম্বন করে এবং কোভিড সুরক্ষার নিয়মাবলী মেনে ঈদ উৎসব উদযাপনের জন্য আমি সকলের কাছে আবেদন জানাচ্ছি। ঈদ-উল-আজহা আমাদের জীবনে শান্তি সম্প্রীতি এবং আনন্দ নিয়ে আসুক।”

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী ঈদ-উল-আজহা উপলক্ষ্যে জনসাধারণকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এক ট্যুইট বার্তায় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, “ ঈদ মুবারক!  ঈদ-উল-আজহার শুভেচ্ছা। আজকের এই দিনটি বৃহত্তর স্বার্থে সেবার মানসিকতাকে পরদুঃখকাতরতা, সম্প্রীতি ও সমন্বয়ের ভাবনায় জারিত করুক।“ 

নজরে বাংলা
NAJORE BANGLA, founded over 5 years ago, is a well known Bengali, Hindi & English News and Entertainment Web Portal which has a wide-range readers throughout India, all districts of West Bengal, Tripura, Assam and specially in Bangladesh. We have renowned journalists country-wide and in abroad are servicing through their profession. Please send your feedback to najorebangladesk@gmail.com.
http://najore-bangla.com

Leave a Reply